বুধবার, ৫ই আগস্ট, ২০২০ ইং

লঞ্চডুবির ঘটনায় দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

ভোরের সংলাপ ডট কম :
জুন ২৯, ২০২০
news-image

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছেন, বুড়িগঙ্গা নদীতে ‘মর্নিং বার্ড’ লঞ্চডুবির ঘটনাটি পরিকল্পিত হতে পারে। এ ঘটনায় যেই দায়ী হোক না কেন, তাদের শাস্তির আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।সোমবার (২৯ জুন) বিকেলে সদরঘাট শ্যামবাজার এলাকায় দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর প্রতিমন্ত্রী এমন ধারণার কথা জানান।

এদিন সকাল ১০টার আগে আগে ময়ূর-২ লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড লঞ্চটি অর্ধ শতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়। এ পর্যন্ত ৩০ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে সেখান থেকে। বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে যান নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পাশাপাশি বিআইডব্লিউটিএ’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। পরে সাংবাদিকদের জানান, এ ঘটনা পরিকল্পিত হতে পারে। তবে ঘটনার জন্য দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। যদি লঞ্চের মালিক দোষী হয়, তাহলে তাকেও আইনের আওতায় আনা হবে।

সোমবার সকালে ঢাকা থেকে চাঁদপুরের পথে ছেড়ে যায় ময়ূর-২ লঞ্চ। মর্নিং বার্ড লঞ্চটি মুন্সীগঞ্জ ঘাট থেকে ঢাকায় আসছিল। শ্যামবাজারে ময়ূর-২ লঞ্চটি মর্নিং বার্ডকে ধাক্কা দিলে অর্ধশতাধিক যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লঞ্চটি ডুবে যাওয়ার সময় সাঁতরে কয়েকজন তীরে এসে পৌঁছান। কিন্তু অধিকাংশ যাত্রী লঞ্চের মধ্যে আটকা পড়ায় তারা বের হতে পারেননি। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস ও পরে তাদের সঙ্গে কোস্ট গার্ড যুক্ত হয়ে উদ্ধার অভিযান শুরু করে। এ পর্যন্ত উদ্ধার করা ৩০ মরদেহের মধ্যে রয়েছে দুইটি শিশু, পাঁচ জন নারী ও ২৩ জন পুরুষ। মরদেহগুলো স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজের মর্গে রাখা হয়েছে। এখনো উদ্ধার অভিযান চলছে শ্যামবাজারে।

আর এ দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে এরই মধ্যে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়। এ দুর্ঘটনার তদন্তে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব (উন্নয়ন) মো. রফিকুল ইসলাম খানকে। কমিটির সদস্য সচিব করা হয়েছে বিআইডব্লিউটিএ’র পরিচালক (নৌনিরাপত্তা) মো. রফিকুল ইসলামকে। সাত দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটিতে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি সংক্রান্ত অফিস আদেশে বলা হয়েছে, এই কমিটি দুর্ঘটনার কারণ উদঘাটন এবং দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তি বা সংস্থাকে শনাক্ত করবে। একইসঙ্গে দুর্ঘটনা প্রতিরোধে করণীয় উল্লেখ করে সুনির্দিষ্ট সুপারিশ দেবে।

আরও পড়তে পারেন