রবিবার, ৩১শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

অষ্ট্রিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচনে নমিনেশন পেলেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত, ভোলা জেলার লালমোহনের সন্তান, তরুন রাজনীতিবিদ, সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার মাহমুদুর রহমান নয়ন।

ভোরের সংলাপ ডট কম :
আগস্ট ৫, ২০১৯
news-image

মাসুক আহমেদ চৌধুরী, বিশেষ প্রতিনিধি, অষ্ট্রিয়াঃ আগামী ২৯শে সেপ্টেম্বর,২০১৯ইং অষ্ট্রিয়ায় পার্লামেন্ট নির্বাচন। এই নির্বাচনে নমিনেশন পেয়েছেন বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত মাহমুদুর রহমান নয়ন। তিনি সদ্য বিদায়ী ক্ষমতাসীন দল অষ্ট্রিয়ান পিপলস পার্টি থেকে নমিনেশন পেয়েছেন।২৯শে সেপ্টেম্বর এখানে নির্বাচন। Austrian People`s Party (ÖVP) এর সেন্ট্রাল নমিনেশন বোর্ড মাহমুদুর রহমান নয়ন কে ভিয়েনার ১৩,১৪ এবং ২৩নং ডিসট্রিক্টের নির্বাচনী এলাকা থেকে চূড়ান্ত নমিনেশন প্রদান করেন।

নয়ন নমিনেশন পাওয়ায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বয়ে যায়। অষ্ট্রিয়ার নিয়মানুযায়ী পার্টিকে ভোট দেবেন এখানকার নাগরিকরা।পার্টি বাচাই করে যাদের পার্লামেন্টে পাঠাবেন তারাই হবেন পার্লামেন্টের সদস্য।১৮৩ টি আসনের অষ্ট্রিয়ান পার্লামেন্টে এর আগের ইলেকশনে ৬২ টি আসন পায় মাহমুদুর রহমান নয়ন এর দল Austrian People`s Party (ÖVP), Social Democratic Party of Austria (SPÖ) পায় ৫২ টি আসন এবং Freedom party of Austria (FPÖ) পায় ৫০ টি আসন। অন্যান্য পার্টি পায় ১৯ টি আসন। সেই সময় Austrian People`s Party (ÖVP) এবং Freedom party of Austria (FPÖ) সমযোতা করে সরকার গঠন করেন।

 

মাহমুদুর রহমান নয়নের প্রার্থীতার কথা নিশ্চিত করেছেন নয়নের বাবা অষ্ট্রিয়ার সিনিয়র সাংবাদিক,অষ্ট্রিয়া বাংলাদেশ প্রেস ক্লাবের সভাপতি,অল ইউরোপিয়ান বাংলা প্রেস ক্লাবের উপদেষ্টা এবং দৈনিক ভোরের সংলাপ ও সেরা কণ্ঠের অল ইউরোপিয়ান ব্যুরো চীপ মাহবুবুর রহমান। তিনি বলেন, অষ্ট্রিয়ার পার্লামেন্ট ইলেকশনে এর আগে কোনো বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত নাগরিক প্রার্থী হওয়ার সুযোগ পাননি। পিপলস পার্টি তার জনপ্রিয়তা অনুযায়ী ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলে নয়নই হবেন প্রথম বাংলাদেশী অষ্ট্রিয়ার পার্লামেন্ট সদস্য।

আমি যোগাযোগ করেছিলাম নয়নের সাথে সাক্ষাৎকার নেয়ার জন্য, উনি অনেক ব্যাস্ততার মধ্যেও আমাকে আমন্ত্রন জানান ওনার বাসায় যাওয়ার জন্য।ওনার সাথে আলাপে জানা যায়, মাহমুদুর রহমান নয়নের জন্ম ১৯৯৫ইং সালে ভিয়েনায়।উনি অষ্ট্রিয়ার নাম করা একটি Higher Technical College(HTL)থেকে অষ্ট্রিয়ার গ্রেড অনুযায়ী Excilent Result করেন।এই কলেজে থাকাকালীন অবস্থায় তিনি অষ্ট্রিয়ার কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের স্পিকার ছিলেন। এরপর University of Central Lancashir(UCLan)UK. থেকে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে B.Sc.(Hon`s) First Class এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে M.Sc.তে First Class পেয়ে উত্তীর্ণ হন।তিনি চাকরিতে যোগ দেন জার্মানের একটি নাম করা আই টি কোম্পানিতে, সিনিয়র কনসালটেন্ট হিসেবে।

প্রবাসে থাকা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বাংলাদেশী বেড়ে ওঠা তরুনদের নিয়ে মাহমুদুর রহমান নয়ন বলেন, প্রবাসে বেড়ে ওঠা বাংলাদেশী তরুণরা নিজেদের কমিউনিটিতে বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি স্থানীয় রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়া জরুরী।

বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে তার মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাংলাদেশের গতানুগতিক রাজনীতির আমুল পরিবর্তন আনতে হবে। বড় বড় এবং গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় পদগুলিতে তরুণদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। নুতন ব্যবসা এবং চাকুরীর ক্ষেত্রে দুর্নীতি মুক্ত করতে হবে। এছাড়াও পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে, তবেই বাংলাদেশ সামনের দিকে এগিয়ে যাবে।

ব্যক্তিগত প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, তিন বোন এক ভাইয়ের মধ্যে তিনিই সবার ছোট। তার বাবা অষ্ট্রিয়ায় ১৯৮৪ ইং সালে ভিয়েনা আসেন। বাবা মায়ের উৎসাহ ও অনুপ্রেরণায় তিনি আজ এ পর্যন্ত এসেছেন। তার বাবা একজন সিনিয়র সাংবাদিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তি যোদ্ধার সন্তান হিসেবে তিনি গর্বিত । পরিশেষে এই তরুন রাজনীতিবিদ বলেন, অষ্ট্রিয়ার পার্লামেন্টের নির্বাচনে যদি তার পার্টি ক্ষমতায় আসে তবে তিনি অবশ্যই এম,পি হবেন এবং অষ্ট্রিয়ার পার্লামেন্টে দাড়িয়ে বাংলাদেশের বংশোদ্ভূত হিসেবে বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশকে তুলে ধরবেন। তিনি দেশ ও বিদেশের সকল বাংলাদেশীদের কাছে দোয়া প্রার্থনা করেন।

আরও পড়তে পারেন