বুধবার, ৪ঠা সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

এইচএসসিতে ‘মৃত ব্যক্তি’ পরীক্ষক

ভোরের সংলাপ ডট কম :
মে ২৫, ২০১৯
news-image

মো. সানাউল্লাহ হায়দার মারা গেছেন দুই বছর আগে। কিন্তু এ বছর এইচএসসির পরীক্ষায় তাকে বহিঃপরীক্ষক করা হয়েছে। তিনি গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক ছিলেন। এ ঘটনায় চরম হয়রানির শিকার হয়েছে সংশ্লিষ্ট কলেজের ব্যবহারিক পরীক্ষার কমিটি।

কোনাবাড়ী ডিগ্রি কলেজ কর্তৃপক্ষ জানায়, এ বছর এইচএসসির ব্যবহারিক পরীক্ষায় কলেজে জীববিজ্ঞান বিষয়ে বহিঃপরীক্ষকের তালিকায় মো. সানাউল্লাহর নাম রয়েছে। সঙ্গে রয়েছে তার মোবাইল ফোন নম্বর। ওই নম্বরে যোগাযোগ করলে সানাউল্লাহর স্ত্রী জানান, ২০১৭ সালে শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। পরে বোর্ডের নিয়োগ পাওয়া বাকি পরীক্ষকরা জীববিজ্ঞান বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া শেষ করেছেন। আগের বছরগুলোতে ব্যবহারিক পরীক্ষকদের নির্দেশিকা মুদ্রিত কপি দেওয়া হয়েছিল। এবার অনলাইনে সরবরাহ করা পরীক্ষকদের নির্দেশিকাটি ছিল হাতে লেখা। এতে ছিল প্রচুর কাটাকাটিও।

এ ব্যাপারে ঢাকা বোর্ডের সচিব তপন কুমার সরকার বলেন, প্রত্যেক বছর কলেজের শিক্ষকদের ডাটা অনলাইনে হালনাগাদ করা হয়। তবে ওই কলেজ হয়তো তাদের শিক্ষকদের তথ্য হালনাগাদ করেনি। এ কারণে আগের তথ্য অনুযায়ী তাকে বহিঃপরীক্ষক করা হতে পারে। তবে যাইহোক এটি ঠিক হয়নি। এ বিষয়ে খতিয়ে দেখা হবে।

তিনি বলেন, এবারই প্রথম ওই নির্দেশিকা অনলাইনে পাঠানো হয়েছে। দ্রুত করতে গিয়ে এবার হাতে লিখে অনলাইনে দিতে হয়েছে। আগামীতে আর এমন হবে না।

শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. মিজানুর রহমান চৌধুরী বলেন, কলেজের আইসিটি শিক্ষককে ওই তালিকা হালনাগাদের দায়িত্ব দিয়েছি। তিনি ওই তালিকা হালনাগাদ করেছিলেন কি না, সেটি আমি জানি না।

আরও পড়তে পারেন